Home » Slider » তদন্ত করে পিবিআইকে প্রতিবেদন দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট।

তদন্ত করে পিবিআইকে প্রতিবেদন দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট।

সিরাজুস সালেকীন :

টাঙ্গাইলের সখীপুরে বানিয়ারসিট-শাপলারবাইদ সড়কের নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার এক সপ্তাহের মধ্যেই সড়কের পিচ কেন উঠে গেছে তা তদন্ত করে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) আদেশ দিয়েছেন আদালত। রোববার বিকেলে টাঙ্গাইল চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সুমন কুমার কর্মকার স্বপ্রণোদিত হয়ে এ আদেশ দেন। আগামী ২৩ নভেম্বরের মধ্যে এ সংক্রান্ত তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে জমা দেওয়ার জন্যও ওই আদেশে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

গত শনিবার দৈনিক প্রথম আলোতে ‘এক সপ্তাহের মাথায় উঠে যাচ্ছে নতুন সড়কের পিচ’ শীর্ষক একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এই প্রতিবেদন নজরে আসে টাঙ্গাইল চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের সখীপুর-নাগরপুর আমলী আদালতের বিচারক সুমন কুমার কর্মকারের। তিনি স্বপ্রনোদিত হয়ে বিষয়টি তদন্তের জন্য গতকাল রোববার বিকেলে পিবিআইয়ের টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপারের প্রতি আদেশ দেন। এই পিচ উঠে যাওয়ার জন্য ঠিকাদারের কাজে কোন গাফিলতি আছে কিনা বা কেউ পিচ তুলে ফেলেছে কিনা তা তদন্ত করে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য পিবিআই পুলিশ সুপারকে বলা হয়েছে। এ ছাড়াও গত ২০ নভেম্বর এ নিয়ে প্রথম আলোর অনলাইনে এ সড়কের পিচ উঠা নিয়ে একটি ভিডিও প্রতিবেদনও প্রচার হয়েছে।

উপজেলা এলজিইডি কার্যালয় সূত্র জানায়, জনগুরুত্বপূর্ণ গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন অগ্রাধিকার প্রকল্পের আওতায় উপজেলার কালিয়া ইউনিয়নের বানিয়ারসিট-শাপলারবাইদ এক কিলোমিটার সড়ক পাকা করণের জন্য ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে দরপত্র আহ্বান করা হয়। ৫৭ লাখ ৩১ হাজার ৮০৭ টাকা ব্যয়ে কাজটি পায় ‘প্রাইম ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপম্যান্ট’ নামে একটি ঠিকাদারি সংস্থা। ২০১৭ সালের ৪ এপ্রিল ওই কাজের কার্যাদেশ দেওয়া হয়। চুক্তি অনুযায়ী ২০১৮ সালের ৩ জানুয়ারির মধ্যে কাজটি শেষ করার কথা ছিল। ওই ঠিকাদারি সংস্থা ২০১৮ সালে ৫০ ভাগ কাজ শেষ করে কাজ ফেলে চলে যান। সর্বশেষ গত এক মাস আগে ওই ঠিকাদারকে চিঠি দিয়ে কাজটি শেষ করার অনুরোধ জানানো হলে গত ১০ অক্টোবর কাজটি দায়সারাভাবে শেষ করেন। শেষ করার এক সপ্তাহ পর থেকে স্থানীয়রা হাত দিয়ে টেনেই সড়কের পিচ/কার্পেটিং তুলে ফেলতে পারছেন। এ অবস্থায় এলাকাবাসীর অভিযোগ, ঠিকাদার নিম্নমানের সামগ্রী ও পরিমানমত মালামাল না ব্যবহার করেই দায়সারা ভাবে কাজ শেষ করে চলে যাওয়ার এক সপ্তাহের মাথাতেই সড়কের এ হাল হয়েছে।

Leave a Reply

error: Content is protected !!